সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

তোমরা বলে দিও

এম.এস প্রিন্স

মা তুমি! কখন আসছ?
এই ত কিছুক্ষণ – জবাব দিলাম
ধরতে চাইলাম, কিন্তু ছুঁয়ে দেখা সম্ভব হয়নি
নেট জালে মোড়া জানালার বহিরাংশে আমি
ভেতরে বাকের।
তবে কিছুই বোঝতে দেইনি
পোড়া বুকের কান্না গভীরে মাটি চাপা দিলাম
বললাম, নয়ন-ধারা মুছে নাও –
তোমার মাঝে হাসছে আগামী বাংলাদেশ।
এক বাকের বন্দী হলেও লাখো বাকের ঘরে ঘরে
ওদেরকে বলো, গুলি যেন মিস না হয়।
জবাব দিলো –
বললো, আজ তিন দিন খাবার দেয়নি –
আমি ভাত খাবো মা।
পাথর কণ্ঠ – বোঝানোর ভাষা বোবা
চলে এলাম দীর্ঘশ্বাসে
ভাত নিয়ে গেলাম তিন ঘণ্টা পর
এই রমনাই তো সেই রমনা আজও
কত মানুষ ধরে নিয়ে যায়
মুক্তি দেয় আবার পুলিশ
কেবল মুক্তি নেই তাঁর কপালে
পেলামনা বুঝি তাই বাকেরকে আমি।
আজও পঁচা শির পনেরই আগস্ট
তাঁকেও হারিয়েছি একাত্তরের এই দিনে

সেই থেকে আজওব্দি ভাত খাইনি
কারন গর্ভজাতকে খাওয়াতে পারিনি।
তবে থেমে থাকিনি –
‘গুলি মিস হয়নি বাকেরদের।’
সংবাদ দিতে – ভাত পুরে দিতে মুখে
খুঁজেছি, ডেকেছি বারেবার রমনা থেকে সবখানে
কিন্তু সাড়া পাইনি – দেখা নিলেনি কোথাও তাঁর।
আঁধার পৃথিবী – নিভুনিভু নয়নের আলো
শক্তি নেই বাইরে বেরোবার
খোঁজা হবে না তাঁকে বুঝি আমার থেকে আর।
তবু প্রতিক্ষায় অপেক্ষমান এই সবুজে আমি
যদি কভু দেখা হয় তোমরা বলে দিও তাঁকে
সে যেন দেখা করে-
খেয়ে যায় আমার বাকের।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লেখক সম্পর্কে জানুন

এই রকম আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *